পেঁয়াজ আসছে, কাল-পরশু দাম কমে যাবে; কালোবাজারীদের কোন ছাড় নয় – প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৫:১৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক।।  পেঁয়াজ বিমানে উঠে গেছে। কার্গো বিমান ভাড়া করে পেঁয়াজ আনা হচ্ছে। কাল-পরশু পেঁয়াজ এলে দাম কমে যাবে। তিনি বলেন, যাদের কারণে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল হয়েছে বা দাম বেড়েছে তাদের সনাক্তের কাজ চলছে। কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
শনিবার (১৬ নভেম্বর) ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশের মানুষ যখন ভালো থাকে তখন একটা শ্রেণি ষড়যন্ত্রে মেতে ওঠে। তারা কোনো না কোনোভাবে দেশকে অস্থিতিশীল করতেএকটি ইত্যু তৈরি করে। এদেশের মানুষ ভালো থাকুক সুখে-শান্তিতে থাকুক তারা এইটা চায় না। যারা এ ধরনের অপকর্ম করে তাদের বিষয়টিও এদেশের জনগণ দেখবে বলে জানান শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এদেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য আমরা নানাবিধ ও কর্মসূচি ঘোষণা করেছি। শুধু শহর নয়, গ্রামের মানুষদেরও শহরের মতো সুবিধা দিতে আমরা কর্মসূচি ঘোষণা করেছি। আজ যখন একজন প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ আধুনিক ও উন্নত জীবন-যাপন করছে, নিজেদের উপার্জিত আয় দিয়ে স্ববলম্বি হচ্ছে ঠিক তখনই দেশের শত্রæরা, স্বাধীনতার শত্রæরা দেশের শান্তি নষ্ট করতে উঠে-পরে লেগেছে।
শেখ হাসিনা বলেন, একজন রাজনীতিকের জীবনে সে নিজে কতটুকু লাভবান হলো সেটা বড় কথা নয়। মানুষকে কতটুকু দিতে পারলো সেটাই হলো বড় কথা। আমাদের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন দেখেছিলেন এই বাংলাদেশকে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে। স্বাধীনতার সুফল এদেশের মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে হবে।
প্রধানমন্ত্রী বলেণ, দেশে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান চলছে, অভিযান অব্যাহত থাকবে। দেশে কোনো দুর্নীতি, সন্ত্রাস চাঁদাবাজি চলবে না। দুর্নীতির টাকা দিয়ে এদেশে কোন ফুটানি-ফাটানি চলবে না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের নীতি হচ্ছে কেউ যেন পিছনে না পড়ে থাকে। সবাই সুন্দরভাবে জীবন যাপন যেন করতে পারে। এজন্য শিক্ষা ক্ষেত্রে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন তিনি।
এর আগে সম্মেলনের শুরুতেই জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। প্রধান অতিথিকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা নির্মল রঞ্জন গুহ এবং গাজী মেজবাউল হক সাচ্ছু। এরপর পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করা হয়।